Health

স্বাস্থ্য সংক্রান্ত কিছু সাধারণ কথা

স্বাস্থ্য বিষয়ক কথাঃ স্বাস্থ্য সকল সুখের মূল নয় সুস্বাস্থ্য সকল সুখের মূল । কি চাই না এই স্বাস্থ্য ভালো রাখতে সবাই চায় তার শরীর স্বাস্থ্য ভালো থাকুক। তাই আজকের বিষয় আপনাদের জন্য। প্রতিটি মানুষ তার নিজ স্বাস্থ্য নিয়ে অনেক কিছু ভাবে। কিন্তু কজনই বা সুস্থ শরীর নিয়ে থাকতে পারে। তাই আপনাদের মত লোকদের জন্য আজকের কিছু দরকারি কয়েকটি সহজ টিপস নিয়ে এসেছি।

পৃথিবীতে অনেক মানুষ অনেক কিছু খেয়ে থাকে। তাই খাবার থেকে তাদের শরীর খারাপ হয় ।আপনি কি কখনো ভেবেছেন আপনি সারাদিন কি কি খাবার খান। আপনি কি কখনও চিন্তা করেছেন আপনি সারাদিন কতটুক পুষ্টিকর খাবার খাচ্ছেন। আপনি কি কখনো চিন্তা করেছেন আপনি সারাদিন কতটুকু অস্বাস্থ্য খাবার খাচ্ছেন। নাকি সারাদিন ব্যায়াম করেন।

স্বাস্থ্য টিপস

সারাদিন কতবার কতটুকু খাবার খান। আপনি সারাদিন কি কাজ করেন। আপনার ঘুম রাতে না দিনে।কতটুক সময় ঘুমান, আপনার গভীর ঘুম কতটুকু। এক কথাই হচ্ছে যে আপনি ২৪ ঘন্টায়, মানে সারাদিন রাত কি করছেন তা নিয়ে আপনি কখনও চিন্তা করেছেন। আর এই কারনেই আপনার শরীর স্বাস্থ্য দিনদিন খারাপের দিকে ছেড়ে দিচ্ছেন আপনি অতএব আর এভাবে অসচেতনভাবে কোন কিছুই নয় ।

এখন থেকে নিয়মিত সবকিছু । আপনি যদি সারা দিন রাত যা কিছু করছেন তাই যদি একটি রুটিন আকারে করেন । তাহলে আপনার শরীরের উপর বেশি একটি প্রভাব ফেলবে না। যাই হোক আমরা এখন মূল কথায় চলে আসি।

নিচে বাকি সব তথ্য

আমি উপরে যা আলোচনা করলাম তা দেখে হয়তো ভাবছেন যে এখন থেকে নিয়মিত ব্যায়াম করতে হবে,নিয়মিত হাঁটতে হবে, নিয়মিত খাবার তালিকা করতে হবে, নিয়মিত সঠিক সময়ে ঘুমাতে হবে, শর্করা ও চর্বি জাতীয় খাবার নিয়ন্ত্রণ করে স্বাস্থ্যসুরক্ষা পথে থাকবেন। তাহলে আপনি ঠিক ভেবেছেন কিন্তু বর্তমান সময় সবার কাছে সব সময় ধারণের নিয়মের মধ্যে চলা খুবি কষ্টকর।তাই আপনারা সহজ ভাবে সহজ অথবা কমন কিছু কাজ যে সব কাজ প্রতিদিন করলে আপনাদের অনেক দিক থেকে অনেক উপকার হবে।

কিভাবে, কখন, কোন সময় খাবার খাবেন

আপনি যদি তিন বেলা খাবার খান তাহলে সেটিকে নিয়মের মধ্যে রাখতে হবে । খাবারের সময় প্রতিদিন যেন একই সময় থাকে তাহলে আপনাদের শরীর স্বাস্থ্য ভালো থাকবে । যেমন ধরুন আপনি আজকে সকালে খেলেন তো কাল সকালের খাবারটি দুপুরে খেয়েছেন। আপনি যদি এরকম কিছু করে থাকেন তাহলে আজই এই খাবার তালিকা পরিবর্তন করে প্রত্যেকদিন একই সময়ে খাবার খান।

কতটুকু ঘুম দরকার এবং কোন সময় ঘুমানো প্রয়োজন

আপনি কি সঠিক সময়ে ঘুমান।প্রত্যেকদিন ঘুমার তালিকা একই থাকতে হবে এবং ডক্টরদের মতে প্রত্যেকটি মানুষকে কমপক্ষে ৭ থেকে ৮ ঘন্টা ঘুমানো দরকার । ডক্টর গেভিনের মতে ঘুম কম হলে মানুষের নতুন জিনিস শেখার ক্ষেত্রে অনেক সমস্যা হয় বা কগনিটিভ ফাংশনের ক্ষেত্রে ক্ষতি হয়। ঘুমের ঘাটতি হলে একটি মানুষ তার স্বাভাবিক থেকে একটু একটু করে অন্যরকম হয়ে যাবে অন্যান্য সময়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে ব্যক্তি দ্বিধা দ্বন্দ্বে ভুকতে পারে বলে জানিয়েছেন ডক্টর বাকিংহাম । অনেক ডাক্তার রা বলে থাকেন যে রাত ১২ থেকে ২ তার মধ্যে মানুষের মাথার মেমোরি রিলিজ হয় । অতএব সঠিক সময় ঘুমানোর প্রয়োজন।

একটি মানুষকে বেশি করে হাসো কেন প্রয়োজন

ডক্টর জেমস গিল বলেছেন মানুষদের হাসিখুশি থাকার চেষ্টা করা। কিন্তু চাইলেই মানুষ হাসতে পারে না, এই বিষয়ে ডক্টর গিলের উত্তর দিয়েছেন যে সহজেই সুখী হওয়া যায় সুখী থাকার সহজ উপায় হিসেবে বেশি করে হাসান হাসার উপদেশ দিয়েছিলেন তিনি ।

বিভিন্ন ধরনের সবজি বিভিন্ন ধরনের ফলমূল খাওয়া কেন প্রয়োজন

ডক্টর মেগান রসি বলেছিলেন, বেশি বেশি করে ফলমূল ও শাকসবজি খেলেই হবে না। বিভিন্ন ধরনের শাকসবজি এবং ফলমূল খাওয়া অনেক অনেক প্রয়োজন। এর মধ্যে বিভিন্ন জাতের থাকতে হবে। ডক্টর মেগান রসি মতে প্রত্যেকদিন ভিন্ন ভিন্ন শাকসবজি, ফলমূল যদি খাওয়া যায় তবে তা স্বাস্থ্যের জন্য অনেক ভালো । আমরা জানি যে আমাদের পাকস্থলী তে মাইক্রোবায়োম বলে একটি ব্যাকটেরিয়া আছে এবং ব্যাকটেরিয়াটি মানুষের স্বাস্থ্যের ওপর গভীর প্রভাব ফেলে । তাই এক্ষেত্রে যত বেশি শাকসবজি ও ফলমূল খাওয়া যায় ততো ভালো ।

ঘুম থেকে কখন উঠবেন এবং ঘুমের পর কি করবেন

প্রত্যেক দিন সকাল সকাল ঘুম থেকে উঠার একটি ডেইলি রুটিন করে নিতে হবে। কারণ প্রত্যেক দিন সকাল বেলা ঘুম থেকে উঠলে শরীর-স্বাস্থ্য এবং কি মন ভাল থাকে। তাই যারা ঘুম থেকে দেরিতে ওঠেন তারা সব সময় চেষ্টা করবেন কেন প্রত্যেকদিন সকালবেলায় একই সময়ে ঘুম থেকে ওঠার।

যেকোনো ধরনের তথ্য জানতে চাইলে আমাদের www.informerbd.com এই ওয়েবসাইটে ঘুরে আসতে পারেন অথবা আমাদের কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানান। আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য ধন্যবাদ ।

Back to top button