Business

বর্তমানে সব চেয়ে লাভজনক ব্যাবসা ২০২২

শুধু ব্যবসা করার মনমানসিকতা থাকলেই হবে না। সাথে আপনাকে খুজে নিতে হবে বর্তমানে কোন ব্যাবসা গুলো চলছে। সময়ের সাথে তালমিলিয়ে আপনাকে ব্যবসায় নামতে হবে। আমাদের সমাজে এমন অনেকেই আছেন যাদের অনেক অনেক টাকা দিয়ে কোন কিছু না ভেবেই ব্যবসায় মনোনিবেশ করে থাকে। পরে ব্যবসার মূলধন ও উঠাতে পারে না ব্যাবসায় লস এর সামিল হয়। তাই বর্তমানে সবচেয়ে লাভজনক ব্যবসা কোনগুলো আপনাকে আগে সেদিকে খেয়াল করতে হবে। তা না হলে যেকোন ব্যবসা আপনি লস বা ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে। ব্যবসার ধরন অনেক হয়ে থাকে। বর্তমান যুগ হল ডিজিটাল যুগ । আর তাই সবাই ঘরে বসেই ব্যবসা করার চেষ্টা করছে।এই পোস্টে আমি আপনাকে অফলাইন ও অনলাইন এই দুটি ব্যবসার আইডিয়া দিব। প্রথমে আমরা আলোচনা করব অফলাইন ব্যবসা নিয়ে। যেগুলো বর্তমানে সবচেয়ে লাভজনক ব্যবসা হিসাবে চলছে।

বর্তমানের সবচেয়ে লাভজনক ও কমমুনাফার ব্যাবসা

ঔষধের ব্যাবসাঃ বর্তমানে সবচেয়ে লাভজনক ব্যবসা এর মধ্যে ঔষধ ব্যবসা হল অনেক জনপ্রিয় একটি ব্যবসা, কারন প্রতিটি মানুষের ঔষধের দরকার আছে। তবে এখানে আপনাকে অনেক বিবেচনা করে দোকান দিতে হবে।সাধারনত এই সব দোকান হসপিটাল এবং ক্লিনিক এর সামনে ই বেশী বেচা কেনা হয়ে থাকে। তাছাড়া প্রত্যেকটি এলাকা ই অনেক বড় বড় পাইকারী বাজার থাকে সেখানেও আপনি দোকান দিলে বেশ লাভবান হতে পারেন। তবে এক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যেই প্রেসক্রিপশান এর ঔষধ সম্পর্কে ভাল আইডিয়া থাকতে হবে।এবং এ সম্পর্কে একটি সর্ট কোর্স করে নিতে পারেন।

দর্জির ব্যাবসাঃ দর্জির ব্যবসাটি বেশ পুরনো ও অনেক ভালো মানের একটি ব্যাবসা । যদি আপনি সম্পুর্ণ ইউনিক ডিজাইনের পোশাক মেয়েদেরকে উপহার দিতে পারেন তাহলে তারা আপনার দোকানে এসে ভিড় করবে। কাস্টমার এর অভাব হবে না । আর ঈদ, সহ সকল অনুষ্ঠান আসলে তো কোন কথা ই নেই । অর্ডার আর অর্ডার। তবে আপনি যদি ভাল ভাল ডিজাইন উপহার না দিতে পারেন তাহলে আপনি কাস্টমার পেতে খুব কস্ট হবে। শহরের অলি গলিতে অনেকেই এই ব্যবসাটি বেশ দিব্যি চালিয়ে যাচ্ছে।এটি গ্রম গন্জেও করা যায়।

কাগজের বিভিন্ন ব্যাগ এর ব্যবসাঃ পলিথিন ব্যবহার অনেক আগে থেকেই নিষিদ্ধ,কারণ এটা পরিবেশের ক্ষতি করে থাকে। তাই সবাই এখন পরিবেশ বান্ধব জিনিস খুজছে।দেশীয় কাচামাল দিয়ে আপনি এই কাগজের ব্যাগ তৈরী করে বাজারে বিক্রি করতে পারেন কারণ এটি পরিবেশ বান্ধব। নানান রকম কাগজ দিয়ে আপনি তৈরী করতে পারেন এই কাগজের ব্যাগ।আপনার এলাকার আশে পাশের যত দোকান আছে সেগুলোর সাথে যোগাযোগ করে যদি আপনি এই ব্যবসাটি শুরু করতে পারেন তাহলে আপনি বেশ লাভবান হতে পারেন।আর এতে খরচ কম করতে হয় এবং লাভ বেশি পাওয়া যায়।

পাইকারি বাজার এর ব্যাবসাঃ পাইকারি বাজার অনেক আগে থেকে ই জনপ্রিয় । তবে এখন এটি এখন অনলাইনে চলে আসছে। তাই বলে আপনি ব্যবসা করে লাভবান হবেন না, বিষয়টি এমন নয়।নিউমার্কেট, গাউসিয়া, পুরান ঢাকার ইসলামপুর ও গুলিস্তান থেকে আপনি পাইকারি দামে অনেক কম মূল্যে খুব ভাল মানের জিনিসপত্র পাবেন যা আপনি চাইলে এই ব্যবসাটি মাত্র বিশ হাজার টাকা দিয়ে শুরু করতে পারেন।

অল্প বাজেটের লাভজনক ব্যাবসা

অল্প পুকিতে লাভ জনক ব্যানসা হিসাবে ওয়ানটাইম জিনিসপত্র যেমনঃ অন-টাইম গ্লাস,প্লেট ইত্যাদি,এগুলোর ব্যাবসা করতে পারেন।বর্তমানে এই ওয়ান টাইম গ্লাস, ওয়ান টাইম কাগজের কাপ, ওয়ান টাইম প্লেটের বেশ চাহিদা তৈরী হয়েছে। পরিবেশ বান্ধব হওয়ার কারনে সবাই এখন যেকোন অনুষ্টানে এটি ব্যবহার করে থাকে। তাই আপনি নিশ্চিন্তে এই ব্যবসাটি শুরু করতে পারেন। প্রতিটি ইভেন্ট থেকে শুরু করে পিকনিক, জন্মদিন, ভার্সিটি ও কলেজের যেকোন প্রগ্রামে এই ওয়ানটাইম প্লেট ও গ্লাস এর ব্যবহার দিন দিন বেড়েই চলছে,তাই লাভজনক ব্যবসা হিসেবে আপনি এটি শুরু করতে পারেন।এতে লাভ বেশি হয়।আরো ব্যাবসার আইডিয়া পেতে পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়তে থাকুন।

কেন আপনি ব্যাবসা করবেন?

কোভিড ১৯ সহ নানা কারনে নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য ২০২০ সালটি মোটেই ভালো যায় নি। শুধুমাত্র নতুন উদ্যোক্তা কেন পুরাতন উদ্যোক্তাদের জন্যও চ্যালেঞ্জিং বছর ছিল ২০২০ সাল। ২০২২ সাল নতুন একটি বছর, নতুন সম্ভাবনা, নতুন আশা এবং সর্বোপরি নতুন করে আবার ব্যবসা-বাণিজ্য শুরু করতে হবে।

ব্যাবসার আইডিয়া ও ধারণা

যে কোনো ব্যবসা শুরু করার প্রথম ধাপ। আপনার কাছে যদি একটি লাভজনক বিজনেস আইডিয়া থেকে থাকে তবে তা যাচাই বাছাই করতে হবে। বিজনেস আইডিয়াটি নিয়ে পরিবারের সদস্য, বিশস্ত বন্ধু বান্দবদের সাথে আলাপ আলোচনা করতে হবে। তাদের কাছ থেকে পাওয়া পজিটিভ কিংবা নেগেটিভ দিকগুলো নিয়ে কাজ করতে হবে।এছাড়া ব্যবসাটি প্রতিষ্ঠা করতে যাওয়ার আগে অবশ্যই বাজর বিশ্লেসন করে নিতে হবে। আপনার ব্যবসার মাধ্যমে গ্রাহকদের সমস্যার সমাধান করতে পারবেন তা নিশ্চিত করতে হবে। আপনাকে ব্যবসা নয়, গ্রাহকদের সমস্যার সমাধান করতে হবে।তাছাড়া বর্তমানে ব্যাবসার মাধ্যমে জীবনে উন্নতি সম্ভব। এতে আাপনাকে কারো মুখাপেক্ষি হয়ে থাকতে হবে না।

নগদ টাকার ব্যাবসা

নগদ টাকার ব্যাবসা হচ্ছে সরাসরি টাকা নিজের টাকাকে মূলধন বানিয়ে ব্যাবসা।এখানে আপনি কোন ঋন করবেন না।এবং টাকা সরাসরি বিনিয়গ করা। নগদ টাকা দিয়ে আপনি অনেক ধরনের ব্যাবসা করতে পারবেন। বিনা পুজির ব্যাবসাঃ বিনা পুজির ব্যাবসা হলো যে ন্যাবসা তে আপনি টাকা না লাগিয়ে নিজের শ্রম দিয়ে আয় করবেন। নিচে কিছু বিনা পুজির ব্যাবসা সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।

বর্তমান সবচেয়ে লাভজনক ব্যবসা সম্পর্কে বিস্তারিত উপরে আলোচনা করেছি । আশা করি সম্পূর্ণ পোস্টটি আপনার ভালো লেগেছে । এই পোস্টটি মাধ্যমে আপনি উপকৃত হলে তা অবশ্যই আমাদের কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না । এধরনের পোষ্ট আমরা প্রতিনিয়ত দিয়ে থাকি সুতরাং আমাদের ওয়েবসাইটটিতে পরবর্তীতে আবার ভিজিট করার আমন্ত্রণ রইল।

Related Articles

Back to top button