Travel

ঢাকা টু কলকাতা মৈত্রী এক্সপ্রেস ঢাকা ভাড়া, সময়সূচি এবং বিভিন্ন তথ্য

আপনারা কি বাংলাদেশ থেকে ট্রেনে করে কলকাতা যেতে চাচ্ছেন ,তাহলে আজকের পোস্টটি আপনার জন্য কারণ, আমরা আজকে আলোচনা করতে যাচ্ছি ঢাকা টু কলকাতা মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনটি সম্পর্কে। আলোচনা করব ট্রেনটি ঢাকা থেকে কলকাতা যাওয়ার সময় সূচি, রচনা করবো ট্রেনটির বিতরের সুযোগ-সুবিধা, আলোচনা করব আরো অনেক কিছু।

রচনা করবো ট্রেনটির শীততাপ নিয়ন্ত্রিত নিয়ে

ঢাকা থেকে কলকাতার পথে মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনটি এখন সম্পূর্ণ শীততাপ নিয়ন্ত্রিত । তাই ট্রেনটি বিলাসবহুল ভাবে ভ্রমণ উপযোগী । শীততাপ নিয়ন্ত্রিত কারণে আপনাদের কোন ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে না। আপনি খুবই ভালভাবে যাত্রা করতে পারেন। ট্রেনটিতে শীততাপ নিয়ন্ত্রিত এই নতুন সেবা উদ্বোধন করেছিলেন রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক ১৪ ই এপ্রিল ২০১৭ সালে শুক্রবার সকালে ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট স্টেশনে ।

ট্রেন ঢাকা থেকে ছাড়ার সময় এবং ট্রেনের টিকিট কোথায় পাবেন তা নিয়ে কিছু কথা

মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনটি ঢাকা থেকে ছাড়ে সকাল ৮:১৫ মিনিটে । মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনটি ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট স্টেশনে শারে আর কমলাপুর রেলস্টেশন গিয়ে টিকিট কাটতে হবে তা না হলে কলকাতা ট্রেনের টিকিট আর কোথাও বিক্রি হবে না। অতএব আপনাদের কমলাপুর স্টেশন থেকে টিকিটটি সংরক্ষণ করতে হবে।

মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনটি ঢাকা এবং কলকাতা থেকে কি বার করে ছাড়ে ট্রেনটি তা নিয়ে আলোচনা করব

ট্রেনটি সপ্তাহে চার দিন চলবে ।

মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনটির বর্তমান সময়সূচী

মঙ্গলবার

বুধবার

শনিবার

রবিবার

ট্রেনটির সময়সূচি পরিবর্তন হতে পারে। মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনটি সপ্তাহে চারদিন এর পরিবর্তে পাঁচ দিন হতে পারে ।

মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনটি বহির্গমন ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট

শনিবার

শুক্রবার

সোমবার

মঙ্গলবার

আপনি কি ট্রেনের রিটার্ন টিকিট কাটতে পারবেন কিনা তা নিয়ে নিছে সব কিছু তথ্য বিশ্লেষণ করা হল

আপনি ট্রেনের রিটার্ন টিকিট কাটতে পারবেন তবে কলকাতা টু ঢাকা ট্রেনের টিকিট কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে কাটতে পারেন তবে ১০০% এর মধ্যে ২০% টিকিট দিতে পারে ঢাকা থেকে সে ক্ষেত্রে আপনি টিকিট পেতে পারেন আবার নাও পেতে পারেন এবং বাকি ১০০% এর মধ্যে ৮০% টিকিট কলকাতা কাউন্টার থেকে দিয়ে থাকে তাই সেখানে টিকিট সচরাচর পাওয়া যায় ।সেখানে টিকিটের কোন রকম সমস্যায় পড়তে হয় না এবং টিকিট নিয়েও কোনো রকম সমস্যায় পড়তে হয় না । তাই আপনারা চেষ্টা করবেন টিকিট সেখান থেকে সংরক্ষণ করার ।

এবার আপনাদের সঙ্গে আলোচনা করবো ট্রেনটিরভাড়া সংক্রান্ত কিছু তথ্য

এসি কেবিনঃ

এসি কেবিন ১৫২২ টাকা
ভ্যাট ৩৭৮ টাকা
ট্রাভেল ট্যাক্স ৫০০ টাকা
মোট = ৩৪০০ টাকা

এসি চেয়ারঃ

এসি চেয়ার ১৭৪৮ টাকা
ভ্যাট ২৫২ টাকা
ট্রাভেল ট্যাক্স ৫০০ টাকা
মোট= ২৫০০ টাকা

প্রতিজনের জন্য ৫০০ টাকা করে কলকাতা টু ঢাকা ট্রাভেল ট্যাক্স দিতে হয় এই টাকাটা টিকিটের সঙ্গে যুক্ত থাকে

এসি কেবিন ২০১৫ রুপি
এসি চেয়ার ১৩৪৫ রুপি

আপনারা জানেন যে সাধারণভাবে পাসপোর্ট অনুসারে বয়স ধরা হয়ে থাকে। এরপরেও আপনারা জানেন যে শিশুদের জন্য ৫০% ডিসকাউন্ট থাকে। কিন্তু যদি বয়স এক বছর থেকে পাঁচ বছরের মধ্যে হয় তাহলে এই ডিসকাউন্ট শুধুমাত্র তাদের জন্য অথবা সম্পূর্ণ টিকিটের ভাড়া দিতে হবে ।

উপরে যা হিসাব দেওয়া আছে সেটি আমি ডলার হিসেবে দিয়েছি এতে কিছু কম-বেশি হলেও হতে পারে কারণ ডলার রেট পরিবর্তন হতে পারে ।তবে হিসেবের পরিবর্তন হলেও খুব বেশি একটা পরিবর্তন হবে না। কিন্তু এর আগে আপনাদের যা বলেছিলাম আপনাদের ট্রাভেল ট্যাক্স কিন্তু ১০০% দিতে হবে কারণ টিকিট কাটতে হলে ১০০% ট্রাভেল ট্যাক্স দিয়ে ট্রেনের টিকিট কাটতে হয় । আমি এই বিষয়ে উপরে উল্লেখ করেছিলাম।

আপনারা কখন কোন সময় টিকিট পাবেন

আপনারা কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে টিকিট সংরক্ষণ করতে পারবেন। টিকেট সকাল ৯ টা থেকে রাত সাতটা পর্যন্ত দেওয়া হয় এবং আপনি চাইলে ৩০ দিন আগে থেকেও আপনি অগ্রিম টিকিট কিনে রাখতে পারেন। আমার মনে হয় যে ৩০ দিন আগে থেকেই টিকিট কাটা ব্যবস্থা করতে হবে। কারণ প্রচন্ড চাপ থাকায় আপনি দুই-তিন দিনের মধ্যে টিকিট নাও পেতে পারেন।

আপনাদের সঙ্গে কত কেজি পর্যন্ত নিতে পারবেন তা উল্লেখ করা হলো

আপনারা জানেন যে একজন পূর্ণবয়স্ক ব্যক্তি ফ্রিতে সর্বোচ্চ ৩০ কেজি পর্যন্ত একটি লাগে নিতে পারবে এবং বাচ্চাদের ক্ষেত্রে ফ্রিতে সর্বোচ্চ ২০ কেজি পর্যন্ত নিতে পারবে মানে আপনাদের সাথে যদি ছোট বাচ্চা থাকে তাহলে বাঁচার জন্য ফ্রিতে সর্বোচ্চ ২০ কেজি নিতে পারবেন।

৩০ কেজির বেশি নিলে অতিরিক্ত কত টাকা চার্জ দিতে হবে তা নিচে বিশ্লেষণ করা হলো

আপনারা জানেন যে ট্রেনটিতে ফ্রিতে সর্বোচ্চ ৩০ কেজির বেশি নিতে পারবেন না কিন্তু আপনি যদি ৩০ কেজির বেশি নিতে চান তাহলে, নিতে পারবেন কিন্তু আপনাকে অতিরিক্ত টাকা দিতে হবে । আপনি যদি ৩১ কেজি থেকে ৫০ কেজি হলে প্রতি কে জিতে আপনাকে ২ ডলার করে দিতে হবে এবং ৫০ কেজি বেশি হলে প্রতি কেজিতে ১০ ডলার করে দিতে হবে।

ঢাকা থেকে কলকাতায় ট্রেনটি কখন পৌছাবে এই বিষয়ে কিছু কথা

সকাল ৮:১৫ মিনিটে ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট স্টেশন থেকে যাত্রা শুরু করে এবং ট্রেনটি কলকাতায় পৌঁছাতে সন্ধ্যা ৭ টার দিকে পৌঁছাবে তবে এরমধ্যে মাঝে মাঝে কিছু সময় লেট হতেও পারে সে ক্ষেত্রে রাত ৯ টা দিকেও পৌঁছাতে পারে তবে সাতটা থেকে ৯ টার মধ্যেই ট্রেনটি পৌঁছায় ।

কলকাতা থেকে ঢাকায় ট্রেনটি পৌঁছাতে কত সময় লাগতে পারে তা নিয়ে কিছু কথা

সকাল ৮:১৫ মিনিটে কলকাতা থেকে ট্রেনটি ঢাকার উদ্দেশ্যে শারে এবং আসছে যদি কোন দেরি না হয় তাহলে সন্ধ্যা ৭ টার মধ্যেই ট্রেনটি পৌঁছায় কিন্তু যদি কোন ক্ষেত্রে দেরি হয় তাহলে রাত ৮ টা থেকে ৯ টার মধ্যে পৌঁছাতে পারে ।

ট্রেনটিতে মোট ঢাকা টু কলকাতা যেতে বা আসতে মোট সময় নিয়ে কিছু তথ্য

আপনারা জানেন যে ঢাকা থেকে কলকাতা মোট চারশো কিলোমিটার পথ যেতে হয়। সে অনুযায়ী ভ্রমণের মোট সময় ১১ ঘণ্টা লাগে তবে মাঝেমাঝেই একটু কমবেশি হয়ে থাকে প্রায় ১১ থেকে ১৩ ঘণ্টা এর বেশি নয় । আপনারা জানেন যে সাধারণত ট্রেনের গতি ৪২ থেকে ৪২ কিলোমিটার ঘন্টায় ।

Back to top button